সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারি পরিচালক পদে নির্বাচিত  হয়েছি।ম্যাথ বিশেষত ব্যাংক -ম্যাথ প্রিপারেশনে আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করার জন্যই এই লেখা।
শর্টকাট ম্যাথ হচ্ছে একটা ফাঁদ।এটি ম্যাথ প্র‍্যাক্টিসের জন্য বরাদ্দকৃত সময় কমিয়ে ফেলে।আপনি যতক্ষণ সময় ম্যাথের জন্য ব্যয় করবেন তার বেশির ভাগ সময় এই শর্টকাট শিখতেই চলে যায়।মধ্যখানে বেসিক আর গড়ে ওঠে না।
আমার মতে শর্টকাটের ফাঁদে পা না দিয়ে ম্যাথের বেসিক ডেভেলাপ করুণ।পরবর্তীতে শুধু ক্যালকুলেশন করে সময় কমিয়ে আনুন । চর্চা করুণ বেশি বেশি।দ্রুত ম্যাথ করতে পারবেন ধীরে ধীরে।
আর একটা কথা।
কেউই শুধু প্রিলি পাশ করার জন্য এক্সাম দেয় না।আপনাকে রিটেন ও দিতে হবে।আপনি যদি বাজারের বইয়ের শর্টকাট ম্যাথে অভ্যস্ত হয়ে যান তবে রিটেনের জন্য পরবর্তীতে আবারো নতুন করে চর্চা শুরু করতে হবে।ডাবল পরিশ্রমের কোনো মানে হয় না।
সারকথাটা হল নিজের স্টাইলে বুঝে বুঝে চর্চা করুন। দেখবেন একটা সময় আপনি নিজেই শর্টকাট করতে পারছেন।নিজের স্টাইলে।এটা দীর্ঘজীবী হবে আপনার জন্য।
শুভকামনা সবার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *