ক। পরীক্ষার ধরনঃ

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক ও ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির সদস্যসচিব মো. মোশাররফ হোসেন খান জানান, প্রথমে ১০০ নম্বরের এমসিকিউ হবে। পরে দিতে হবে ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা। এমসিকিউর জন্য এক ঘণ্টা ও লিখিত পরীক্ষার জন্য সময় দুই ঘণ্টা। এমসিকিউ পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান, তথ্য-প্রযুক্তি, অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটি বিষয়ে প্রশ্ন হয়ে থাকে।

লিখিত পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি, গণিতে থাকে ১৫০ নম্বর। বাকি ৫০ নম্বর বরাদ্দ থাকে ইংরেজি থেকে বাংলা ও বাংলা থেকে ইংরেজি অনুবাদে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হবে। এতে বরাদ্দ ২৫ নম্বর।

খ। পরীক্ষা পদ্ধতিঃ

বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান, তথ্য-প্রযুক্তি, অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটি—প্রতিটি বিষয়ে সমান গুরুত্ব দিতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক শাহরিয়ার আহমেদ তুষার জানান, ৬০ মিনিটে ১০০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। না জেনে প্রশ্নের উত্তর দেওয়া যাবে না। প্রস্তুতি-সহায়ক অনেক বই পাওয়া যায় বাজারে। এসব বই থেকে প্রস্তুতি নিতে পারেন।

তিনি আরো জানান, লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির পাঠ্য বইয়ের সিলেবাস অনুসারে পড়াশোনা করতে হবে। এমবিএ ও বিবিএর বই থেকে অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটির প্রশ্ন সমাধান করতে পারেন। এ ছাড়া ইংরেজি ভার্সনের গণিত বইয়ের অনুশীলনী দেখতে হবে। সাধারণ জ্ঞানে দেশে ও বিদেশে এক বছরের আলোচিত ঘটনা জানতে হবে। সাম্প্রতিক বিষয়াবলিও খুব ভালোভাবে জানতে হবে।
ইংরেজির জন্য চৌধুরী অ্যান্ড হোসেনের গ্রামার বইটি অনুসরণ করতে পারেন। সঙ্গে পড়তে পারেন আরো একটি ভালো মানের গ্রামার বই।

সোনালী ব্যাংকের চুয়াডাঙ্গা শাখার অফিসার মাহফুজুর রহমান জানান, ক্যাশ অফিসার পদের পরীক্ষায় সাধারণত বাংলা ও ইংরেজি বিষয়ে মৌলিক প্রশ্ন হয়। বেশির ভাগ প্রশ্নই করা হয় পাঠ্য বই থেকে। পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির বাংলা ও ইংরেজি পাঠ্য বই থেকেই প্রশ্ন থাকে। সাধারণ জ্ঞান বা অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটির জন্য বেশ কিছু বই পাওয়া যায়। এসব বই থেকে চর্চা করতে হবে।

সাধারণ জ্ঞানে মুক্তিযুদ্ধ, দেশভাগ, ছয় দফা এবং চলতি সময়ের আলোচিত বিষয়াবলি যেমন—স্যাটেলাইট উক্ষেপণ, উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়া সম্পর্কে প্রশ্ন থাকতে পারে।
সাধারণত সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত বিষয়ের ওপরই অনুবাদ করতে দেওয়া হয়। বাক্যের মূল ভাবের পরিবর্তন না করে ইংরেজি থেকে বাংলা অথবা বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করতে হবে।

গ। মৌখিক পরীক্ষাঃ

এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই মিলবে মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ। পঠিত বিষয়, জেলা ও আগের চাকরিসম্পর্কিত প্রশ্ন করা হতে পারে। আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মুদ্রানীতি, পুঁজিবাজার, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, চলতি বছরের বাজেট বিষয়ে জানতে চাওয়া হতে পারে। সঙ্গে দেখা হতে পারে বিচার-বিশ্লেষণের ক্ষমতা, উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা, যোগাযোগের দক্ষতা, নেতৃত্বদানের ক্ষমতা।

কালের কণ্ঠ,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *