বেশকিছুদিন আগে বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে বিষয়ভিত্তিক এবং পর্ব আকারে কিছু লিখা লিখেছিলাম। ঐ লেখাগুলো একটি ব্লগে প্রকাশ পাবার পর অনেকেই ইনবক্সে অনেক প্রশ্ন করেছেন, অনেকেই বাকি বিষয়গুলো নিয়ে লিখার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। বাংলা, ইংরেজি, গনিত, বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী নিয়ে লিখা হলেও নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন এবং মানসিক দক্ষতা নিয়ে লিখা হয়ে ওঠেনি। এই লেখাটি সেই ধারাবাহিকতার অংশ। আজকে আমরা নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন নিয়ে আলোচনা করব।
শুরুর কথা
এই লেখাটির শুরুতেই কিছু কথা বলে নেওয়া প্রয়োজন। আমরা আজকে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি এই অংশে মার্ক পাওয়া একদিক থেকে যেমন খুবই সহজ, আবার বিষয়টি ঠিকঠাক ধরতে না পারলে বেশ কঠিন। সিলেবাসে উল্লেখ করা বিষয়গুলো পড়ার পাশাপাশি আনুষঙ্গিক কিছু জিনিস জেনে রাখলে এই অংশে ভাল করা অনেক সহজ হবে। যেহেতু এই অংশটি রাষ্ট্র পরিচালনা, আমলাতান্ত্রিক বিভিন্ন বিষয়, সামাজিক কাঠামোর মানদণ্ড ইত্যাদি বিষয়কে ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে তাই এই ধরণের প্রতিষ্ঠানের সঠিক সংজ্ঞা ও উদ্দেশ্য আমাদের জেনে রাখতে হবে। রাষ্ট্রের সংজ্ঞা কী? নাগরিকের সংজ্ঞা কী? রাষ্ট্র নাগরিককে কি সুবিধা দেবে আর নাগরিক তার বিনিয়মে কী কী মেনে চলতে বাধ্য থাকবে? রাষ্ট্র ও সমাজ ব্যবস্থা, রাজনৈতিক প্রক্রিয়া ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে ভাল ধারনা থাকবে। এই জিনিসগুলো সম্পর্কে ভাল ধারনা রাখার সাথে সাথে অবশ্যই সিলেবাসে টপিকগুলো সম্পর্কে ভাল ধারণা থাকতে হবে। তাহলে দেখবেন সঠিক উত্তরগুলো এমনিতেই বুঝতে পারছেন।
কোথা থেকে পড়বেন? কিভাবে পড়বেন?
সিলেবাসে যে টপিকগুলো আছে সেই কি-ওয়ার্ডগুলো দিয়ে গুগোলে সার্চ করলে কিছু ভাল আর্টিকেল পাবেন। এগুলো দেখে শিখতে পারলে আপনার একসাথে দুটি উপকার হবে। এক পড়া হয়ে যাবে। দ্বিতীয়ত আপনার ইংরেজি রিডিং স্কিল ভাল হবে। আর আমি যে বেসিক বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে বললাম সেগুলো নবম-দশম শ্রেণীর পৌরনীতি বইতে পাবেন। এছাড়াও বাজারে অনেক গাইডবই পাওয়া যায়। এই বিষয়টি পড়ার জন্য কমপক্ষে দুটি গাইড বই কিনবেন। কারণ একেক বইয়ের উপস্থাপনা একেক রকম। এই অল্প মার্কের জন্য যেহেতু রেফারেন্স বই পড়াটা আপনার জন্য সময়ের অপচয় হয়ে যাবে, তাই আমি দুটি গাইড বই দেখে পড়ার পরামর্শ দেব। আর বিগত বছরের প্রশ্নগুলোর জন্যও আপনার একটি গাইডবই প্রয়োজন হত।
প্রথমে এই সোর্সগুলো থেকে সিলেবাসের বিষয়গুলো সম্পর্কে একটি ওভারঅল ধারণা নিয়ে নেবেন। এরপর বিগত বছরের প্রশ্নগুলো নিয়ে বসবেন। এতে কি ধরণের প্রশ্ন হতে পারে তা সম্পর্কে একটি ভাল ধারণা তৈরি হয়ে যাবে। খেয়াল করলে দেখবেন কিছু কিছু প্রশ্ন বার বার ঘুরে ফিরে আসে। এই প্রশ্নগুলো এবং এই ধরণের সব প্রশ্ন প্রথমে শিখে ফেলবেন। তারপর সময় পেলে বিভিন্ন টপিক কাভার করবেন। যে টপিক শিখবেন, সেটা ভাল মত শেষ করবেন। বেশি বিষয় না শিখে, অল্প বিষয় বিস্তারিতভাবে শেখার উপর জোড় দিতে হবে।
আজকে এই পর্যন্তই থাক। আগামী পর্বে বাকিটুকু লিখব।
লেখা সংক্রান্ত যেকোনো পরামর্শের জন্য আমার ইনবক্সে টেক্সট করতে পারেন। ফেইসবুক আইডি- Avizit Basak
Of all things visible, the highest is the heaven of the fixed stars. — Nicolaus Copernicus
বি দ্রঃ লেখাটাতে শুধু আমার নিজের আইডিয়া অনুযায়ী ধারণা দেয়া হয়েছে। আপনি আপনার মত করেও প্রস্তুতি নিতে পারেন। সফল হবার জন্য যে প্রস্তুতি দরকার, সেটা সম্পন্ন করাটাই মুখ্য কাজ।আর ছোটখাটো ভুল থাকলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন দয়া করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *