তাদের জন্য আমার আইডিয়া

নিজের মত আপনারা সাজিয়ে নিবেন-

১)আপনি হাত –মুখ ধুয়ে শুকনো বিস্কিট, কেক আর পানি খেয়ে পড়তে বসে যান। সকালে যেকোনো পাঠ্যই ভাল মুখস্ত হয়। সেক্ষেত্রে আপনি সকালে সাধারণ জ্ঞান, বাংলা সাহিত্য, ইংরেজি সাহিত্য পড়তে পারেন।
২) ২/৩ ঘন্টা পড়ে তারপর আপনি সকালের নাশতা সেরে নিন। একটু হাঁটাহাঁটি করুন, ঘরে পায়চারী করতে পারেন। সকালের নিউজটা ও দেখে নিন এক ফাঁকে।
৩)তারপর আবার পড়তে বসুন। এইবার আপনি সাধারণ গনিত ও মানসিক দক্ষতা বিষয়টা নিয়ে বসতে পারেন। একটু সময় নিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় আপনি সাধারণ গনিত ও মানসিক দক্ষতা বিষয়টা অনুশীলন করেন। ২/৩ ঘণ্টা অনুশীলন করে আপনি দুপুরের গোসল করা, নামাজ/ প্রার্থনা, খাবার এর পর্বটা সেরে নিতে পারেন। তারপর হালকা ঘুম দিতে পারেন।
৪) দুপুরের হালকা ঘুম থেকে উঠে আপনি একটু হাঁটাহাঁটি/পায়চারি করতে পারেন। তারপর মাগরিবের আগে আর ঘন্টাখানেক আপনি সকালে যাহা পরেছেন তা রিভিশন দিতে পারেন।
৫) তারপর সন্ধ্যা থেকে আপনি ইংরেজি গ্রামার,বাংলা গ্রামার, বিজ্ঞান, কম্পিউটার বিষয় পড়তে পারেন। মোটামুটি এইভাবে একটা রুটিন আপনার মত করে নিতে পারেন। আশা করছি আপনি সফল হবেন। ইনশা আল্লাহ
৬) রুজির মালিক আল্লাহ। তাই তার সাহায্য প্রার্থনা করুনন।
৭) বাবা মায়ের সাথে ভাল ব্যবহার করুন।তাদের দুয়া নিন।
৮) কঠোর পরিশ্রম না, বরং চতুর পরিশ্রম করুন। কৌশলি হন।
৯) খাতায় কিছু কিছু একই ধরনের জিনিস লিখে রাখবেন। অংকটা, ইংরেজি বানানগুলো খাতায় লিখে লিখে চর্চা করবেন।মনে থাকবে বেশি
১০) সব কিছু ছন্দ তৈরি করে পড়বেন না। ছোট ছোট কিছু ছন্দ মনে রাখার চেষ্টা করুন। বাকিগুলো বুঝে মুখস্ত রাখুন। ইনশা আল্লাহ সফল হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *