হতাশা নয়, সাফল্যের জন্য দরকার দৃঢ় প্রত্যয়, চেষ্টা ও উদ্যোগ। থাকা চাই উদ্দীপনা।

আপনার উদ্দীপনাকে জীবনে কাজে লাগিয়েই পৌঁছানো সম্ভব সাফল্যের স্বর্ণ শিখরে। এভাবেই বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কড়া রোদ উপেক্ষা করে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে স্বপ্ন ছড়িয়ে দিলেন ক্যারিয়ার আড্ডার প্রধান বক্তা ৩০তম বিসিএস-এ সম্মিলিতভাবে ১ম ও শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সুশান্ত কুমার। মার্কেটিং বিভাগের সহশিক্ষা বিষয়ক সংগঠন মার্কেটিং আই-এর আয়োজনে তিনি তরুণদের সফলতার পথ দেখান।
তিনি বলেন, সাফল্যকে কখনোই ডিজার্ভ করা যায় না, সাফল্যকে আর্ন করতে হয়। আর স্বপ্নের দিনটার জন্যে বিনয়ের সাথে অপেক্ষা করতে হবে এবং মন থেকে বিশ্বাস করতে হবে, দিনটা আসবেই। যারা আপনাকে ভালো বলেন এবং আপনার সামর্থ্যে আস্থা রাখেন, তাদের সাথে বেশি মিশুন। কেউ ভালো বললে, নিজের মধ্যে যে দায়িত্ববোধ জন্মে, সেটাকে কাজে লাগান। তিনি আরও বলেন, জীবনে বড় হতে হলে Habitual ‘selfish’ weakness to greatness থাকাটা জরুরি। বড়ো মানুষকে ছোটো করে দেখলে উনার কিছুই এসে যায় না। খুব ভালো কিছু করতে যে খুব বেশি সময় নিয়ে করতে হয়, তা কিন্তু নয়। সুন্দর কিছু করতে পরিশ্রম কিংবা বুদ্ধিমত্তার চাইতেও আবেগটাই বেশি দরকার।
পৃথিবীতে নানা প্রতিকূলতার মাঝে বেঁচে থাকাটাও একটা সাফল্য। তাই করে দেখান- যেটা নিয়ে মানুষ আপনাকে তাচ্ছিল করে। অ্যাকাডেমিক্যালি কেউ ভালো স্টুডেন্ট হওয়া মানেই কিন্তু তার ক্যারিয়ার ভালো হবেই, এমনটা নাও হতে পারে৷ ভালো স্টুডেন্টরা অনেক সময়ই আপনাকে সহজ টার্গেট ভাবে। তাদের এই দুর্বলতাকে কাজে লাগান। শেষ হাসিটা হাসার চেষ্টা করুন৷ মাঝের কিছুটা সময় না হয় কাটুক কান্নায়, অবহেলায়, তাচ্ছিল্যে। স্বপ্ন দেখুন নিজের স্বপ্নের মত বাঁচুন। আপনার ভালোলাগার বিষয়গুলো খুঁজে সেটার প্রতি গুরুত্ব দিন। ক্যারিয়ার বিষয়ক আলোচনার পাশাপাশি তরুণদের হতাশা থেকে বের হয়ে বুক ভরা আশা নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *